এই সাতটি বিষয় ভুলেও কখনো গুগলে সার্চ করবেন না তাহলে আপনার বিপদ

টেকনোলজির উন্নতির সাথে সাথে মানুষও অনেক উন্নত হয়েছে একসময় মানুষ কিছু জানার আগ্রহ থাকলে বা কিছু জানার ইচ্ছে থাকলে তখন মানুষ বইয়ের ভিতর থেকে তার শিখতে বা জানতে পারত কিন্তু এখনকার মানুষ এতটাই উন্নত হয়েছে যে কিছু জানার ইচ্ছা থাকলে তাৎক্ষণিক গুগোল এ সার্চ করে তা জানার চেষ্টা করে এবং গুগোল এর সাথে সাথে সে প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকে এবং সাথে সাথে সেই প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান বের করা যায় ।

*** কিন্তু অনেক বিষয় আছে যা ভুলবশত বা না জানার কারণে আমরা গুগোল সার্চ করে থাকি সে বিষয়গুলো আমরা আজকে আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো তা আপনি শিখবেন এবং আপনি জানবেন এবং অন্যদেরকেও জানাবেন যাতে সবাই এই ভুল থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে নিজেকে সংশোধন করতে পারে আমরা আপনার মাঝে তুলে ধরছি আপনি সবার মাঝে তুলে ধরবেন

১:-  সন্ত্রাস ও সন্ত্রাসী সম্পর্কে বা সন্ত্রাসীর সরঞ্জাম সম্পর্কে গুগলে সার্চ করা। যেমন আপনি সন্ত্রাসী কিছু পণ্য দেখবেন বা কিনবেন বা তৈরি করবেন হতে পারে বা অন্য কিছু তা কখনো গুগলে সার্চ করবেন না অনেকেই ভুলবশত এই কাজটি করে ফেলে।
অনেকে কৌতূহলবশত এই কাজগুলো করে থাকে যেমন বোমা কিভাবে তৈরি করে অস্ত্র কিভাবে তৈরি করে এগুলো অনেকে গুগোল সার্চ করে থাকে কিন্তু তারা জানে না দেশের বিভিন্ন সিআইডি বা ক্রাইম ইউনিট টেকনোলজি ইউনিট, এবং নিরাপত্তা মাদক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা সবসময় গুগলের সার্চ ইঞ্জিনের উপর নজরদারি করে এবং নজরদারি করে ।
এবং তারা আইপির ( IP ) মাধ্যমে সার্চ কৃত গুগোল এ সার্চ আইপি ট্যাকিং করে সেই লোকটিকে শনাক্ত করতে পারে তাই কৌতুহলবশত গুগোল এ জিনিস গুলো সার্চ করবেন না তাতে আপনারই মঙ্গল এবং এই কাজগুলো থেকে দূরে থাকুন ।

২:- রোগ রোগ সম্পর্কে জানা বা রোগের লক্ষণ জানা

গুগল এ সার্চ করার মধ্যে ভুলবশত একটি কাজ করে থাকি আমারা, এবং আমরা ভুলবশত ভাবে আমাদের শরীরের অবস্থা অনুযায়ী ও শরীরের রোগ সম্পর্কে গুগলে সার্চ করে থাকি,
শরীরের লক্ষণ ও প্রতিকার সম্পর্কে জানার জন্য আমরা অনেকই গুগলে সার্চ করে থাকি কিন্তু এটা আমাদের জন্য একটি মারাত্মক ক্ষতিকর বিষয় বা দিক কেননা গুগলে অনেকগুলো ওয়েবসাইটের এডমিনরা তারা নিজেরা নিজেদের মত পোস্ট ও মন্তব্য করে থাকে যা কোনো বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের ধারা প্রচলিত নয় ।

সব ওয়েবসাইট বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরিচালনা বা পরামর্শ অনুযায়ী চলে না,
এই কারণে আমরা গুগলে স্বাস্থ্য বিষয়ক রোগের লক্ষণ ও প্রতিকার সম্পর্কে কখনো সার্চ করবো না,তাতে আমাদের কাছে ভুল তথ্য চলে আসবে আমরা সঠিক তথ্য জানার জন্য একজন চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহন করবো গুগোল কোনদিন আপনাকে শারীরিক চিকিৎসা সম্পর্কে জানতে সাহায্য করবে না কেননা আপনারা জানেন একেক ওয়েবসাইট অডমিন একেক রকম পোস্ট বা মন্তব্য করে থাকে যা আপনার শরীরের জন্য খারাপ হয়ে থাকবে ।

এসব ওয়েবসাইট রোগ সম্পর্কে যা লিখবে তা আমাদের শরীরের জন্য কখনোই কাজে আসবে না,
তা আমাদের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে এরকম ভুল তথ্য দিয়ে আমাদের রোগ সম্পর্কে বা আমাদেরকে ভিন্নখাতে নিয়ে যেতে পারে তা আমাদের শরীর ও রোগের জন্য খুব ক্ষতি হতে পারে তাই গুগলে সার্চ না করে নিকটবর্তী চিকিৎসকের পরামর্শ নিন তাতে আপনি রোগমুক্ত হবে ।

*** ত্বকের সমস্যার জন্য গুগলে সার্চ করে থাকে মানুষ

ত্বক নিয়ে বা ত্বকের বিষয়ে মানুষ গুগলে এ সার্চ করে থাকে, এটি একটি খারাপ দিক ত্বকের অবস্থা জানতে মানুষ গুগলে সার্চ করে, গুগল এ সার্চ করার পরে মানুষ যে পোস্ট বা তথ্যগুলো পায় তা বিভিন্ন ওয়েবসাইট এডমিনরা তারা নিজেদের অভিজ্ঞতা অনুযায়ী এই সম্পর্ক পোস্ট করে থাকে ।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে ওয়েবসাই খুবই কম এবং ত্বকের সমস্যা বা অ্যালার্জি জনিত সমস্যা এসব সমস্যা বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে ।
মানুষের শরীরে এলার্জি জনিত সমস্যা এটা বেশিরভাগ দেখা যায় মানুষ যখন চর্ম রোগে আক্রান্ত হয়ে ভয়াবহ ভাবে চর্ম রোগে আক্রান্ত হতে দেখা যায় এবং মানুষ চর্ম রোগের সম্পর্কে গুগলে সার্চ করে এবং গুগলে বিভিন্ন রকমের চর্ম রোগের ছবিও পাওয়া যায় ।

কিন্তু চর্ম রোগের বিভিন্ন কারণ ও বিভিন্ন দিক রয়েছে এগুলোর মধ্যে অনেকগুলো সমস্যা রয়েছে যে এগুলো গুগলে সার্চ করে না দেখাই ভাল ।
চর্ম রোগের সমস্যা ভূগোলে আপনি অবশ্যই নিকটবর্তী চিকিৎসকের পরামর্শ নিন তা আপনার জন্য শুভ হবে চর্ম রোগের বিষয় কখনো গুগলে সার্চ করবেন না তা আপনাকে সঠিক তথ্য কখনো দিতে পারবেনা ভুল তথ্য আপনার কাছে উপস্থাপন করবে কেননা এখানে কোন চিকিৎসক আপনাকে ব্যাখ্যা দিবে না এখানে কিছুসংখ্যক ওয়েবসাইট বা এডমিন আপনাকে তাদের ভাষায় ব্যাখ্যাগুলো দিবে যাতে আপনার কোন উপকারে আসবে না ‌।

*** ক্যান্সারের সমস্যা সম্পর্কে গুগলে সার্চ দেওয়া

মানুষের মধ্যে এখন অনেক আধুনিক ছোঁয়া লাগার কারণে মানুষ অনেকটা অলস ও স্বল্প পরিশ্রমী হয়ে গেছে মানুষ এখন পরিশ্রম করে খেতে চায় না মানুষ এখন অলস হয়ে গেছে কিন্তু রোগের বিষয় মানুষকে অলস হলে চলবে না ক্যান্সারের বিষয় মানুষের মাঝে ও আধুনিকতা ছড়িয়ে গেছে।

তাই বড় বড় মনীষী বা পন্ডিতরা বলেছেন যে অল্প শিক্ষা ভয়ঙ্কর এবং আরো বলেছেন অনেক অনেক ব্যাপার আছে যেগুলো অল্প জানলেই ভাল বেশি জানতে গেলে সে জানা সমস্যায় পরিণত হয়ে পড়ে এবং বেশি বোঝার চেষ্টা করলে সেটা বুঝতে না, তা সমস্যায় পরিণত হয়ে যায় যখন ছোট উদাহরণস্বরূপ যেমন:- আপনার শরীরের ছোট ছোট বিষয় যদি আপনি গুগলে এ সার্চ করেন গুগোল তা সঠিক তথ্য কখনই দিতে পারবে না ।

যেমন আপনার মাথা ব্যাথা, বমি, পেট ব্যাথা, কোমর ব্যথা, বুক ব্যাথা এগুলোর কারণ যদি আপনি গুগলে সার্চ করেন তা আপনাকে কখনো সঠিক তথ্য দিবে না বা দিতে পারবে না এবং এই সমস্ত রোগের সমস্যা সমাধান গুগলের কাছে খুঁজে বেড়ায় কিন্তু গুগোল সব সময় আপনাকে সঠিক তথ্য দিবে এটা কিন্তু সত্য কথা নয় গুগোল এর কাছে কোন তথ্য নেই মানুষের দেওয়া তথ্যই গুগোল আপনার কাছে উপস্থাপন করে যেমন:- পেট ব্যাথা, বুক ব্যাথা, বমি বমি ভাব, কোমর ব্যথা এগুলো ক্যান্সারের লক্ষণ এসব লক্ষণ কিন্তু ক্যান্সারের রোগীদের ও থাকে আবার সুস্থ স্বাভাবিক মানুষের মাঝেও এসব রোগের লক্ষণ দেখা যায় কারণ সুস্থ মানুষটি সামান্য দুর্বলতার কারণে বা সামান্য কারণে এসব রোগের লক্ষণ দেখা যায় ।

তাই আপনি যদি এই রোগের লক্ষণগুলোর কারণ যদি গুগলে সার্চ করেন তা আপনি যদি ধরে নেন যে আপনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন তাতে আপনার সমস্যা কখনই কমবে না বরং আপনার সমস্যা বেড়ে চলবে কেননা এ রোগের লক্ষণগুলোর ভিতর অনেক পার্থক্য আছে আপনি রোগের কারণ হিসেবে যদি ক্যান্সার কে বেছে নেন আর আপনার যদি ক্যান্সার না হয় তাতে আপনার জন্য ক্ষতি হয়ে দাঁড়াবে এবং আপনাদের দুশ্চিন্তায় ক্যান্সার আপনি বুঝবেন তাই গুগলের সার্চ গুগোল এ রোগ সম্পর্কে চার্জ দেওয়া বন্ধ করুন ।

*** ব্রণ সম্পর্কে গুগলে সার্চ করা বা ত্বকের সৌন্দর্য সম্পর্কে গুগোল সার্চ করা ।

এখনকার প্রায় মানুষ ব্রণের সমস্যায় ভুগে এখন অনেকেই বরণ সম্পর্কে গুগলে সার্চ করে ব্রণ সম্পর্কে আপনি গুগলে সার্চ না করে একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নেন তাতে আপনার উপকারে আসবে আপনার ব্রণ চলে যাবে ।

কিন্তু গুগলে সার্চ করে কখনোই ব্রণের সমাধান পাবেন না, কারণ গুগলে একেক জন একেক ধরনের পোস্ট করে সমাধান দিয়েছেন তা কোনটাই আপনার জন্য সঠিক নয় কেননা ওয়েবসাইটে আপনাকে ব্রণ সম্পর্কে যে তথ্য দিয়েছে তা সবটুকুই আপনার সাথে বেমানান ।
ডাক্তার আপনাকে মেডিসিন দিবে ট্রিটমেন্ট করবে গুগোল আপনাকে তা কখনোই করবে না ।

গুগল আপনাকে না দেখে টিটমেন্টের পরামর্শ দিবে কিন্তু তাও সঠিক পরামর্শ নয় একেক জনের একেক পরামর্শ অনুযায়ী আপনার শরীরের অবস্থা খারাপ হতে পারে তাই বরনের পরামর্শ গুগল থেকে নেওয়া বন্ধ করুন এবং সুন্দর হওয়ার জন্য আমরা বিভিন্ন ক্রিম সম্পর্কে জানতে চাই সুন্দর কিভাবে হয় সেই তথ্য জানতে গুগোল এ সার্চ করে থাকি এটা মোটেও করা উচিত নয় কেননা গুগলে বিভিন্ন রকম ক্রিম কম্পানি এডভাইস দেওয়া হয়ে থাকে তাতে আপনার কাঙ্খিত উত্তরটি কখনো খুঁজে পাবেন না তাই বলে এই ধরনের গুগলে চার্জ দেওয়া থেকে বিরত থাকুন ।

*** গর্ভবতী মায়ের চিকিৎসা ও বাচ্চাদের চিকিৎসা সম্পর্কগুলো সার্চ

গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসার জন্য কখনো ভুলেও গুগলে সার্চ করবেন না, কেননা গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসার জন্য সঠিক ও ভালো একজন গাইনী বিশেষজ্ঞ সাথে পরামর্শ করবেন,
গুগলে আপনাকে কখনো ভালো সমাধান দিতে পারবেনা   কেননা গুগল কোন মানুষ বা ডাটাবেজ নয় ।
গুগোল তে মানুষের তৈরি ডাটাবেজ গুলো রাখা হয় যা থেকে গুগল আপনার কথা অনুযায়ী ডাটা বের করে আনে কিন্তু এইগুলো কোন বিশেষজ্ঞ দ্বারা তৈরী নয় বিভিন্ন সাইটের এডমিনরা এটা তৈরি করে থাকে এবং অনেক সময় কিছু কিছু কথা তাদের মন গড়া হয়ে থাকে আর আপনার শরীরের অবস্থা অনুযায়ী ডাক্তার আপনাদের চিকিৎসা করবে গুগল নয় ।

গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসা ও তাদের অনেক সমস্যা থাকতে পারে তাই তাদের সমস্যার ব্যাপারে ভুলেও গুগলে সার্চ করবেন না চিকিৎসার জন্য ডাক্তার এর পরামর্শ নেবেন এবং ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে গুগোল এ সার্চ করে তাদের কোন প্রকার রোগ নির্ণয় ও লক্ষণ দেখার চেষ্টা করবেন না ।
তাদেরকে বা তাদের রোগ সম্পর্কে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করবেন এবং ডাক্তারের চিকিৎসা বা পরামর্শ অনুযায়ী তাদেরকে ঔষধ সেবন করাবেন গুগলের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন করবেন না তাতে আপনার বাচ্চা দুর্ঘটনা বা সমস্যার মুখোমুখি হতে পারে তাই গুগোলের এর সার্চ থেকে দূরে থাকুন এই সমস্ত দিক গুলো গুগোল এ সার্চ দেওয়া থেকে দূরে থাকুন তাতে আপনার ভালো হবে ।

কখন আপনি এই বিষয় গুলো গুগলে সার্চ করবেন না এবং অন্য কেউ সতর্ক হওয়া জন্য আমাদের এই আলোচনা গুলো সবার মাঝে আপনি তুলে ধরবে ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *