ওয়াজ মাহফিলে সরকার বাধা দিচ্ছে তোপের মুখে বিএনপি’র : এমপি হারুন অর রশিদ

বিএনপি দলের এমপি হারুন অর রশিদ বলেছেন সরকার ওয়াজ ও মাহফিল করতে বাধা দিচ্ছে ।
এই কথা সংসদে তোলা সাথে সাথে তিনি সংসদের প্রত্যেকটি সদস্যের তোপের মুখে পড়েছেন সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা বলেছেন তিনি জামায়াতের পক্ষে কথা বলেছেন সেইজন্যে তিনি সরকারি দলের সংসদ সদস্যদের তোপের মুখে পড়েছেন ।

সংসদ সদস্যরা বলেন জামায়েতের পক্ষে বিএনপি সব সময় কথা বলে, জামায়েতের পন্থীরা বিভিন্ন ওয়াজ মাহফিলে গিয়ে মিথ্যা উপস্থাপন মিথ্যা কথা ও মিথ্যা বক্তব্য উপস্থাপন করে এবং ধর্মের নামে মিথ্যাচার করে জনগণ ও মুসলিমদের কে বিভ্রান্ত করে
এ সময় বিএনপির সংসদ সদস্য হারুন অর রশিদের মন্তব্যে সংসদে সরকার দলীয় সংসদ সদস্যরা বলেন বিএনপি দলের সংসদ সদস্য এমপি হারুন অর রশিদ যে বিভ্রান্ত প্রান্তিক আপত্তিকর বক্তব্য দিয়েছেন তার সবটুকু জামায়াতের পক্ষে

বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজের পর স্পিকার ডক্টর শিরীন শারমিনের সভাপতিত্বে সংসদে পয়েন্ট অফ অর্ডার সংবিধানের থাকা বিসমিল্লাহ এবং মাহফিল নিয়ে মন্তব্য করার পর সংসদে অনেক উৎপাত সৃষ্টি হয় ফলে বিএনপির এমপি হারুন অর রশীদ সংসদের সকল সদস্যদের তোপের মুখে পড়েন এবং সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা এর তীব্র নিন্দা জানান

বি এন পির এমপি হারুন অর রশিদ বলেন রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি সংসদে সংশোধিত সংবিধানের পূর্বে আল্লাহ সর্বশক্তিমান আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা রেখে যাবতীয় কাজের ভিত্তি উপস্থাপন করতে হবে অথচ এটি নতুন সংবিধানের সংসদীয় থেকে উঠিয়ে দেওয়া হয়েছে
বিএনপি’র সংসদ সদস্য আরো বলেন
রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম রাখা হয়েছে সংবিধানের সংশোধনী ও সম্ভাবনায় পূর্বের সংবিধানে লেখা ছিল বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম পরম করুনাময় আল্লাহর নামে শুরু করলাম ।

তিনি আরো বলেন হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ও বিভিন্ন ধর্মের মানুষেরা তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে যাচ্ছে, কোন সমস্যা ছাড়াই কিন্তু আমাদের ইসলাম ধর্মের অনুসারীরা মাহফিল করতে গেলে বাধা ও নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হয় তা আমাদের জন্য খুব দুঃখের ও হতাশার বিষয় এবং আমাদের মাহফিল নিয়ে আপত্তি কেনো এটা একটি ইসলামিক রাষ্ট্র হিসেবে ইসলাম ধর্মের মাহফিল করতে কেনো সরকার বাধা দিবে বা কেনো মাহফিলে নজোর দারি করতে হবে ।
বিএনপির এমপি হারুন অর রশিদের এই বক্তব্যের সময় সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা নো নো বলে তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকে
এই বক্তব্যের জবাব দিতে উঠে সরকার দলের সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ বলেন বাংলাদেশ হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান তারা সবাই তাদের নিজ নিজ ধর্ম সমানভাবে পালন করে চলছে তিনি আরো বলেন দেশের সমস্ত জায়গায় জেলায়-উপজেলায় গ্রাম অঞ্চলে প্রত্যেকটি জায়গায় ওয়াজ মাহফিল হচ্ছে এবং ওয়াজ মাহফিল চালিয়ে যাচ্ছে আল্লাহর নবী রাসুল সাল্লাহু সাল্লাম এর কথা সবাই ওয়াজ মাহফিল মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে শুধুমাত্র জামাত ইসলাম পন্থী বিভ্রান্তিকর শিক্ষা দীক্ষা মানুষ না নেয় সে ব্যাপারে সরকার নজরদারি করতে চলছে সরকার চাচ্ছে যে জামাত ইসলামের বিভ্রান্তিকর শিক্ষা-দীক্ষার কারনে দেশটা যেন জঙ্গিরাষ্ট্রে পরিণত না হয় ।
কিন্তু আমাদের সরকার ইসলামের কোন কার্যকলাপে বাধা সৃষ্টি করে না বরং ইসলামের কাজে সাহায্য করে কিছু সুবিধাবাদী ও ইসলামবিরোধী কর্তিক আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আমাদের ইসলাম ধর্মকে জঙ্গি ধর্ম আমাদের দেশকে জঙ্গিদের দেশ হিসেবে বিশ্বের কাছে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ।

তাই আমরা আমাদের দেশটাকে কোন মতে বা কোন ভাবেই জঙ্গী রাষ্ট্রে পরিণত হতে দিতে চাই না,
আমরা চাই হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাই সাল্লাম ও পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মানব তার অনুসারে বাংলাদেশের ইসলাম অনুসরণ করুক মানুষ ও তাঁর দেখানো পথ অনুসরণ করে ইসলামের পথে আলোকিত হোক
তিনি আরো বলেন বাংলাদেশে ইসলাম আছে ইসলাম থাকবে এবং বাংলাদেশের মানুষ চিরদিন ইসলামকে ভালোবেসে যাবে ইসলাম বাংলাদেশের মানুষের হৃদয় ও মন ছুঁয়ে সব সময় থাকবে ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *