করোনা ভাইরাস কিভাবে ছড়ায় এর লক্ষণ ও প্রতিরোধ গুলো বিস্তারিত দেখুন

চীন সহ পুরো বিশ্ব এখন করোনা ভাইরাসে আতঙ্ক হয়ে পড়ছে এই ভাইরাসের কারণে অসংখ্য মানুষ মারা গেছে এবং অগণিত মানুষ আক্রান্ত হয়ে হসপিটালে ভর্তি হয়ে আছে এখন আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাসের এর ফলে মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে ।

*** কারনা ভাইরাস কিভাবে ছড়ায় তা আলোচনা করা হলো

১:- প্রথমতো হাঁচি-কাশির মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ ।

২:- করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিকে স্পর্শ করলে এই ভাইরাসটি আপনার শরীরে ছড়িয়ে যাবে ।

৩:- ভাইরাস আছে এমন কিছু স্পর্শ করে হাত না ধুয়ে চোখ নাক বা মুখের স্পর্শ করলে তা আপনার শরীরে আক্রান্ত বা আপনার শরীরে ছড়িয়ে যাবে, মূলত এ ভাইরাসটি বাতাসের সাথে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে ।

৪:- মূলত এই ভাইরাসটি বাতাসের সাথে মিশ্রিত হয়ে তা মানুষ ও পশুপাখির মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে তাই এ ভাইরাসটি বাতাসের সাথে মিশ্রিত হয়ে আছে ।

*** কারণ ও ভাইরাসের লক্ষণ গুলো জেনে নিন

১:- কারণ ও ভাইরাসের লক্ষণ এক নাম্বারে এক শিশু বৃদ্ধ ও দুর্বল ব্যক্তিদের নিউমোনিয়া ও ব্রংকাইটিস হতে পারে এইরকম আক্রান্ত হলে তাৎক্ষণিক হাসপাতাল ও চিকিৎসকের পরামর্শ নিন কারণ এই লক্ষন গুলো এই ভাইরাসটির অন্যতম লক্ষণ ।

২:- সর্দি কাশি জ্বর মাথাব্যথা গলাব্যথা এবং পেট ব্যাথা এই সমস্যাগুলো করোনা ভাইরাসের লক্ষণ, যা হলে অবশ্যই অবশ্যই আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করবেন ।

৩:- মারাত্মক পর্যায়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়া বা হঠাৎ হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়া, এটাও করোনা ভাইরাসের অন্যতম লক্ষণ, এই লক্ষন গুলো দেখলে আপনি তাৎক্ষণিক চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন এবং হসপিটালে যাবেন ।

*** করোনা ভাইরাসের কীভাবে প্রতিরোধ করবেন তা আলোচনা করা হলো ।

এই ভাইরাসটির এখন পর্যন্ত কোন ভ্যাকসিন বা কোন এন্টিবায়োটিক এবং কোন মেডিসিন আবিষ্কার হয়নি সে কারণে সাধারণত এর প্রতিরোধের এগুলোই একমাত্র উপায়

১:- হাঁচি কাশি দেওয়ার সময় সমস্ত মুখ ঢেকে রাখা হবে,  যাতে আপনার হাঁচি বা কাশির নিঃশ্বাস কারো মুখে বা কারো গায়ে না পড়ে ।

২:- মাংস ও ডিম ভালো করে সিদ্ধ করে খাওয়া এবং শাকসবজি কে ভালোভাবে পরিষ্কার করে রান্না করা যাতে  তার ভেতরে থাকা জীবাণু আপনার দেহে প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে খেয়াল রাখাতে হবে ।

৩:- এবং হ্যান্ডওয়াশ বা ভাল মানের সাবান দিয়ে বারবার হাত ধোয়া যার ফলে কোন জীবাণু আপনার হাত থেকে নাকে-মুখে অথবা খাবারের থেকে বা শরীরে ছড়িয়ে না পড়তে পারে সে বিষয়ে নজর রাখতে হবে।

৪:- বন্য জীবজন্তু বা গৃহপালিত কোন প্রাণীকে হাত দিয়ে স্পর্শ না করা এবং যদি স্পর্শ করেন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ভাবে সাবান দিয়ে বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত ও শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ পরিষ্কার করে জীবন মুক্ত রাখতে হবে, যাতে ওই প্রানীর শরীরের ভাইরাসটি আপনার শরীরের বা আপনার দেহে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে ।

৫:- বার বার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া এবং হাত না ধুয়ে মুখ কান চোখ স্পর্শ না করা যাতে আপনার শরীরে কোন ভাইরাস নামের এই রোগটি আপনার দেহে ছড়িয়ে না পড়তে পারে সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।

*** আপনি কখন কখন হাত ধুতে হবে তা জেনে নিন

১:- হাঁচি বা কাশি দেওয়ার পরপরই আপনি আপনার হাত সাবান দিয়ে বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিন বা পরিষ্কার করেননি যাতে এই ধরনের জীবাণু বা ভাইরাস আপনার দেহে ছড়িয়ে পড়তে না পারে ।

২:- খাবার খাওয়ার আগে এবং পরে ভালোভাবে হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে বা সাবান দিয়ে আপনার হাত পরিষ্কার করে নিবেন যাতে কোন প্রকার জীবাণু আপনার হাতে লেগে না থাকতে পারে ।

২:- রান্না করার সময় ভালভাবে হ্যান্ড ওয়াশ বা সাবান দিয়ে আপনার হাত পরিষ্কার করে নিবেন যাতে কোনরকম জীবাণু বা এই করোনা ভাইরাস আপনার রান্নায় ছড়িয়ে পড়তে না পারে এবং আপনার দেহে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেই বিষয়ে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে ।

৩:- বাথরুমে যাওয়ার পর সুন্দর করে হাত পরিষ্কার করে নিবেন এবং সাবান দিয়ে সুন্দর করে বা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে সুন্দর করে হাত পরিষ্কার করে নিবেন, যাতে কোনরকম ময়লা আপনার হাতে না লেগে থাকে এর মাধ্যমে এই ভাইরাসটি আপনার শরীরের বা দেহে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে ।

৪:- পশুপাখি স্পর্শ করার পর আপনি আপনার হাতটি হ্যান্ডওয়াশ বা সাবান দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিবেন যাতে পশু পাখির শরীরে থাকা জীবাণু গুলো আপনার দেহে ছড়িয়ে পড়তে না পারে ।

আল্লাহর অশেষ রহমতে সবাই ভালো থাকবেন, এবং এ করোনা ভাইরাসের প্রতি সবাই নজর রাখবেন, আল্লাহ এই করোনা ভাইরাস থেকে সবাইকে মুক্তি দান করুক এবং সবাইকে ভালো রাখুক সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন নিজের প্রতি খেয়াল রাখবেন এবং অন্যের প্রতিও খেয়াল রাখবেন ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *