করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে লাস্ট ২৪ ঘন্টায় মৃত্যুর সংখ্যা ৪০ এর উপরে এবং হসপিটালে ভর্তি আছে ২০০০ এর বেশি

চীনে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে লাস্ট 24 ঘণ্টায় 40 জনেরও বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে এবং এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২০০০ জনেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়ে হাসপাতলে ভর্তি আছে ‌।

সে চিনে এখন কি রকম পরিবেশ পরিস্থিতি এটা কল্পনাও করা যায় না
চীনের পরিস্থিতি এখন খুবই ভয়াবহ

চীনের উহান শহর থেকে একটি মহিলা আমেরিকার শিকাগোতে গিয়েছেন এবং শিকাগোর হসপিটালের ডাক্তার থাকে হসপিটালে ভর্তি করেছেন ।
তার স্বামী তাকে হসপিটালে দেখতে আসেন, পরের দিন ডাক্তার সেই মহিলার স্বামীকেও হসপিটালে ভর্তি করায় ।
ডাক্তার বলেছেন মহিলার সাথে দেখা করার পর তার স্বামীও করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে পড়েন এই মহিলার স্বামী পরে হসপিটালে ভর্তি হয়েছে ফলে মহিলার সাথে দেখা করতে গিয়ে তার স্বামী ও করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছে ।

ডাক্তারেরা বলেছেন করোনাভাইরাস এর রোগীদের সতর্কতার সাথে চলাফেরা করা উচিত, করোনা ভাইরাসের রোগীদের সাথে কারো হাত মেলানো যাবে না,
মুখের সামনে কথা বলা যাবেনা
এবং তাদের কে জড়িয়ে ধরা যাবে না এবং তারা সর্বদা মাক্স ব্যবহার করবে ।
করোনাভাইরাস এর রোগী যদি হাঁচি বা কাশি দেয় সে স্থান থেকে সাধারণ মানুষ সরে যেতে হবে যাতে তার মুখের  শ্বাস-নিঃশ্বাস অন্য কারো মুখে না যায় যাতে অন্য কেউ তার মতো করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে ।

একজন ডাক্তার বলেছেন : আমার চোখের দেখা চাইনিজ দের কে দেখলে বিভিন্ন দেশের মানুষ তাদের কাছ থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন এবং তাদের সাথে কথা বলছেন না তাদের দেখলে সবাই দূরে সরে যায় এবং তারা যে পথ দিয়ে হেঁটে যায়, মানুষ তার বিপরীত পথে হেঁটে যায় বা অপোর সাইড দিয়ে মানুষ হাঁটাচলা করে ।

চাইনিজদের দেখলে মানুষ করোনাভাইরাস এর আতঙ্কের কথা মনে পড়ে যায়
জার্মানির অধিকাংশ মানুষ এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নয় তার পরেও বিভিন্ন দেশের মানুষ জার্মানির অধিকাংশ মানুষ ধারণা করছেন যে, জার্মানির মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন ।
অন্যান্য দেশে যদি ট্রেনে চাইনিজ কোন লোক বসে তাহলে সেখান থেকে আশেপাশের সকল লোক উঠে যায় এবং তারা দূরে সরে যায় তারা মনে করে যে চীনের প্রত্যেকটি মানুষের সাথে করোনা ভাইরাস জড়িয়ে আছে ।

সে কারণে চিনা প্রত্যেকটি নাগরিক  বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে থাকা চীনা নাগরিকদের মধ্যে একটি অস্বস্তিকর ও বিরক্তিকর মানসিক চিন্তা ভাবনা প্রভাব পড়েছে তারা ভালোভাবে এখন মানুষের সাথে মিশতে পারে না এবং তাদের সাথে কেউ ভয়ে মিশে না ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *