চীন চেয়েছিলো নতুন “কোরআন” লিখতে! সৃষ্টিকর্তা ওদের ভাগ্যে “করোনা” লিখে দিয়েছেন।

চীনে করোনা ভাইরাসের আক্রমণ

প্রথম যেদিন চীনে আক্রান্ত ‘করোনা’ ভাইরাসের খবর শুনেছিলাম, সেদিন বুকটা ভয়ে কেঁপে উঠেছিলো। মনে পড়েছিলো কুরআনের আয়াত- “আমি কত জনবসতিকে ধ্বংস করেছি যারা ছিল যালিম এবং তাদের পর অন্য জাতি সৃষ্টি করেছি। (সুরা আল-আম্বিয়া-১১)
শি জিনপিং নিজেকে চীনের আজীবন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা দিয়েছে কয়েক বছর, মানে নব্য ফেরাউনের পথে পা বাড়িয়েছেন! ভাগ্যিস আজীবনের কথা বলেছে, বলেনি অনন্তকালের! তার মানে তারও একদিন মৃত্যু হবে। পারলে তো একটা আর্টিফিশিয়াল চাইনিজ হার্ট লাগিয়ে নিত, যেটা কখনই থামার নয়! কিন্তু সেটা তো আর সম্ভব নয়।
উইঘুর মুসলিমদের উপর চীন প্রশাসনের সীমাহীন অত্যাচারের খবর বিশ্ববাসীর কাছে পৌঁছেছে। দেশে দেশে প্রতিবাদ হলেও গা করছে না শি। তার উপরে আরও দম্ভভরে ঘোষণা দিয়েছে, মুসলমানদের কোরআন নাকি বদলে দিবে জিনপিং! নাউযুবিল্লাহ। তবে এ নিয়ে জবাব হলো- আল্লাহর বানী, “আমি স্বয়ং এ গ্রন্থ’ নাজিল করেছি এবং আমি নিজেই এর সংরক্ষক (সূরা আল-হিজর-৯)” আল্লাহ পাক নিজেই কোরআন রক্ষার দায়িত্ব নিয়েছেন, তাই যেকোনো উছিলায় তিনি তা রক্ষা করবেন।
চীনারা কাচা বা আধাসিদ্ব অখাদ্য খাবার খায়। আর সেই খাবার থেকে চীনে ছড়িয়ে পড়েছে মহামারী করোনা ভাইরাস। ইতোমধ্যে ৪১ জন মারা গেছে। ১২টি দেশে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস। তবে বিশেষজ্ঞদের ধারণা অনুযায়ী, এই ভাইরাসে সাড়ে ৬ কোটি মানুষ নিহত হতে পারে এমন সতর্কতা জারী করেছেন। এটা হয়ত চীনের জন্য আসমানী গজব।
আল্লাহর জমিনে দম্ভ ভরে চলিও না, বিশ্বভ্রমান্ডের মালিককে চ্যালেঞ্জ করতে যেও না। বাড়াবাড়ি করার কারণে অতীতে বহু জাতিকে দুনিয়া থেকে নিমিষেই বিলীন করে দিয়েছেন সর্বশক্তিমান আল্লাহ।
#সাবধান
“আর আপনার রব ভুলে যান না। ” (সুরা মারইয়াম-৬৪)

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *