ঢাকা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, তাই আমি পদত্যাগ করবো না বলেছেন : প্রধান নির্বাচন কমিশনার

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে হয়েছে একথা বলেছেন নির্বাচন প্রধান কমিশনার কে এম নুরুল হুদা

তিনি আরো বলেন নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ হয়েছে তাই আমার পদত্যাগের কোন প্রশ্নই আসে না তাই আমি পদত্যাগ করবো না ।
নির্বাচন কমিশন কার্যালয় থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এই কথা বলেন ।

এর আগে ভোট নিয়ে বাংলাদেশ জাতীয়বাদী দল বিএনপি ও বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ নেতাদের সাথে বৈঠক করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা

এ বৈঠকে রাজনৈতিক দল দুটি বেশ কিছু অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন
এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যর্থতায় নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদাকে পদত্যাগ করার দাবি জানিয়েছেন বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ নেতারা ।

ইসলামিক আন্দোলনের পদত্যাগের দাবির কথা জানতে চাইলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে হয়েছে তাই আমার পদত্যাগের কোন প্রশ্নই ওঠে না, আর আমি পদত্যাগ করবো না ।

তখন সাংবাদিকরা প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে জিজ্ঞেস করছে যে ভোট কেমন হয়েছে, তখন তিনি বলেছেন ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর মনোরম পরিবেশে হয়েছে প্রত্যেকটি ভোটার সুন্দরভাবে তাদের ভোট প্রদান করতে পেরেছে ভোটাররা খুশি ও আনন্দিত হয়েছে তারা সুন্দর পরিবেশে ভোট দিতে পেরে ।

সবাই সুন্দর পরিবেশে ভোট দিতে পেরেছে কেউ বলেনি যে আমরা ভোট দিতে গিয়ে ভোট দিতে পারি নাই ।

তিনি বলেন কত শতাংশ ভোট পড়েছে তা আমি বলতে পারবো না বা তা আমার জানা নাই তবে 25-30 শতাংশ ভোট পড়েছে বলে তিনি দাবি করেছেন

তিনি আরও বলেন বিভিন্ন প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দেয়া হচ্ছে এমন মন্তব্যে তিনি বলেন এজেন্ট বের করে দেয়া হচ্ছে এমন কোনো সংবাদ আমার কাছে এসে পৌঁছেনি এবং আমি শুনিনি ।

আর এই ব্যাপারে আমাদের কাছে কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ দেয়নি

তিনি আরো বলেন আমি যে কেন্দ্রে ভোট দিতে গিয়েছি সেখানে ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ হয়েছে এবং আমি যে কেন্দ্রে ভোট দিতে গিয়েছিস এই কেন্দ্রের প্রত্যেকটি প্রার্থীর নিজস্ব এজেন্ট ছিল এবং আমি সুন্দরভাবে তাদের মাঝে ভোট দিয়ে এসেছি এবং কোন প্রার্থীর এজেন্ট নিজ দায়িত্বে যদি ভোট কেন্দ্রে না যেতে পারে সেটা তার নিজের দায়িত্ব কেননা প্রত্যেক টি কেন্দ্রে প্রার্থীর এজেন্ট রা তারা নিজ দায়িত্বে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবে তাদেরকে কেন্দ্র পৌছিয়ে দেওয়ার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের নয় ।

তিনি আরও বলেন কোনো ভোট কেন্দ্র থেকে কোনো প্রার্থীর এজেন্ট দের যদি বের করে দেওয়া হয় তাহলে সে প্রার্থী নির্বাচন কমিশনারের কার্যালয়ে বা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে জানাতে বা লিখিতভাবে অভিযোগ করতে হবে তাহলে তাৎক্ষণিক আমরা ব্যবস্থা নিতে পারতাম এ ব্যাপারে আমাদের কেউ কোনো অভিযোগ জানায়নি এবং এই ধরনের কোনো অভিযোগ কেউ আমাদের করে নাই ।

এবং নির্বাচন কমিশনার বলেছেন ইভিএমে ভোট দিতে কোন সমস্যা হয়নি ইভিএমে ভোট দেওয়ার সমস্যার বিষয়ে কোনো ভোটার বা কোনো রিটার্নিং কর্মকর্তা অভিযোগ করেনি তিনি আরো বলেন ইভিএমে ভোট দিতে সমস্যা হচ্ছে এ ব্যাপারে কেউ কোনো মন্তব্য করেনি আর এবিএম খারাপ সে ব্যাপারে কেউ কোনো কথা বলেনি,

তবে কেউ কেউ বলেছে যে ইভিএম ভোট দেওয়ার জটিল বিষয় সে কারণে ইভিএমে ভোট দিতে একটু দেরি হয়েছে ।

তবে অনেক ভোটার বলেছে ইভিএমে ভোট দিয়ে তারা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেছে এবং তারা ইভিএমের মাধ্যমে তাড়াতাড়ি তাদের ভোট প্রদান করতে পেরেছে তাই অনেক ভোটার বলেছে ইভিএমে সুযোগ-সুবিধা তাদের কাছে খুব ভালো লাগছে।
তারা বলেছে যে ইভিএমে ভোট দেওয়া খুব সহজ

সাংবাদিকের প্রশ্নের এক উত্তরের প্রধান নির্বাচন কমিশনার নুরুল হুদা বলেন ভোটারদের আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে ভোটারদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার হয়েছে, এমন কোনো অভিযোগ আমি পাইনি এবং কোন প্রার্থী আমাকে বা আমাদের রিটানিং কর্মকর্তাকে এরকম কোন অভিযোগ দেয়নি তাই তাই আমি বলবো ভোট সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ হয়েছে তাই আমার পদত্যাগ করার কোন প্রশ্নই আসে না আমি পদত্যাগ করবো না ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *