মোদি বিরোধী আন্দোলনে উত্তাল বায়তুল মোকাররম

মোদি বাংলাদেশ সফর জ্বলে উঠছে সারা দেশ : স্লোগানে স্লোগানে উত্তাল রাজপথ

ভারতের মুসলমানদের উপর হামলার প্রতিবাদে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম এলাকা বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে শুক্রবার বাদ জুম্মা মসজিদের উত্তর গেটে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দেন বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতারা বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে বলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শততম জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ জানানোর সমালোচনা করেন বক্তারা বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে জানান ।

তারা বলেন প্রয়োজনে বিমানবন্দর ঘেরাও করার ঘোষণা দেন ইসলামী দলের নেতারা সমাবেশে বক্তারা বলেন সরকার সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর নির্মম অত্যাচার ও গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছেন ‌।

এ সমাবেশে ইসলামিক নেতারা বলেন মোদি সরকার  সংখ্যালঘু মুসলিমদের উপর নির্মম অত্যাচার ও গণহত্যা চালানোর পাশাপাশি মুসলমানদের ধর্মীয় মসজিদ বাড়িঘর ও দোকানপাট আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিচ্ছে এবং দোকানপাট ঘরবাড়ি থেকে টাকা পয়সা ধন সম্পদ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে ।

এই উগ্রবাদী হিন্দু সন্ত্রাসী দলগুলো মুসলিমদের কে টার্গেট করে মুসলিম পরিবারের ওপর নির্মম অত্যাচার ও হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে তাদের এই হত্যাকাণ্ড অত্যাচারের পিছনে উদ্দেশ্য হলো তারা ভারত থেকে মুসলমানদেরকে বিতাড়িত করবে সেজন্য তারা মুসলমানদের ওপর গণহত্যা চালাচ্ছে ।

উগ্রবাদী হিন্দু সন্ত্রাসীরা মুসলমানদের বাড়িঘরে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি, নারী ও শিশুদের ওপর নির্মম নির্যাতন ও অত্যাচার চালানো হচ্ছে এ সময় বিশ্ব মুসলিম সম্প্রদায় ভারতে মুসলমানদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান বক্তারা

তারা বলেন এই পরিস্থিতিতে ভারতের নির্যাতিত নিপীড়িত মুসলমানদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান ইসলামিক এই সমাবেশের বক্তারা বলেন মুসলিম আমাদের ভাই বিশেষ কথা হলো আজ ভারতের মুসলিম নির্যাতিত নিপীড়িত তাই আমরা তাদের পাশে দাঁড়ানো কর্তব্য এবং এই ঘটনার প্রতিবাদ করা আমাদের দায়িত্ব বলে মনে করেন ইসলামী দলের নেতারা ।

ইসলামিক দলের নেতাদের বক্তব্য পর এই বিক্ষোভ মিছিলটি বায়তুল মোকাররম থেকে শুরু হয় নয়াপল্টনের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে এ সময় তারা নরেন্দ্র মোদি বিজেপি  হিন্দুত্ববাদীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন এর আগে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সকাল থেকে বায়তুল মোকাররম এলাকায় জড়ো হতে থাকেন বিভিন্ন ইসলামিক দলের নেতা-কর্মীরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলেন সেই স্থান ।

প্রসঙ্গত, নাগরিকত্ব আইন সংশোধন বিল নিয়ে কয়েকদিন ধরে ভারতে উগ্রবাদী হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী দল বিশেষ করে মুসলমানদের উপর নির্যাতন অত্যাচার ও গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছেন ।

সারা বাংলাদেশ মোদি বিরোধী আন্দোলন চলছে এবং  ১৭ ই মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শততম জন্মবার্ষিকী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পা রাখতে পারবে না মোদি ।

বাংলাদেশের জনগণ চায় না মোদি বাংলাদেশে আসুক সবাই মোদি বিরোধী আন্দোলন করছে এর কারণ হলো ভারতের নয়াদিল্লিতে মুসলমানদের উপর নির্মমভাবে গণহত্যা ও অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছেন, বিজিপি দলের ও উগ্র হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী দল সেজন্য বাংলার মুসলমান মোদিকে বাংলার মাটিতে দেখতে চায় না সেজন্যই সব জায়গায় মোদি বিরোধী আন্দোলন চলছে ।

বাংলাদেশের মানুষ মনে করেন আজ ভারতের নয়াদিল্লিতে যা ঘটছে তা মোদির কথা অনুযায়ী হচ্ছে আজ ভারতে মুসলমানরা নির্যাতিত নিপীড়িত মুসলিমদেরকে নির্মমভাবে গণহত্যা চালাচ্ছে এই মোদি সরকার, তাই বাংলার মানুষ মনে করেন মোদি মতন একজন খুনী ও হত্যাকারী কে বাংলাদেশে কখন এই বাংলার মানুষ মেনে নিবেন না এই মোদি সরকারের হাতে এখনো মুসলমানদের রক্তের দাগ লেগে আছে তাই  বাংলার জনগণ মোদি সরকার কে বাংলাদেশে কখন ই পা রাখতে দেওয়া হবে না মোদি সরকার একটা খুনি তাই বাংলার মানুষ তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ করে যাচ্ছে ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *